কিভাবে আপনার ম্যানিকিওরকে বেশি দিন ধরে টিকিয়ে রাখবেন?

By: ANINDITA SINHA
Subscribe to Boldsky

নারী হওয়া খুব সহজ কাজ নয়। চুলের স্টাইলিং থেকে, নিখুঁত ম্যানিকিওর করা, সবকিছুতেই ধৈর্য্য আর প্রতিভার প্রয়োজন।

আপনাকে সবসময় নিশ্চিত থাকতে হয়, যে আপনার নখের সাথে সাথে, নখের রং কেও দেখতে নতুন লাগছে। এখানে একাধিক কারণ রয়েছে, কেন আপনার নেল পেইন্ট তাড়াতাড়ি বিবর্ণ হয়ে যায় বা একটা নির্দিষ্ট সময় পরে দেখতে খারাপ হয়ে যায়।

এটাই ভাল সময়, আজকেই একটা ম্যানিকিওর করে নেওয়ার, আর আপনার নখ নিশ্চই আপনাকে তার জন্য ধণ্যবাদ দেবে। ম্যানিকিওরকে বেশি দিন ধরে টিকিয়ে রাখার জন্য টিপসগুলি একবার দেখে নিন।

১. জলের সাথে কনট্যাক্ট এড়িয়ে চলুনঃ

১. জলের সাথে কনট্যাক্ট এড়িয়ে চলুনঃ

নখ পলিশ করার আগে, আপনাকে যতোটা সম্ভব জলের সাথে কনট্যাক্ট এড়িয়ে চলতে হবে। নখ একবার জলের সংস্পর্শে এসে গেলে, সেখানে নেল পলিশকে ধরে রাখা খুবই দুঃসাধ্য হয়ে পরে। নখ একবার ডিহাইড্রেটেড হয়ে পরলে, সংকুচিত হওয়ার প্রবণতা দেখা যায়, যা নেল পলিশকে আপনার নখে টিকে থাকতে দেয় না।

২. ভিনিগারের ব্যবহারঃ

২. ভিনিগারের ব্যবহারঃ

বেস কোট লাগাবার আগে, নখকে একবার ভিনিগার দিয়ে ভিজিয়ে নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে। একটা তুলোতে করে ভিনিগার নিয়ে নখ মুছে নিলে, তা নখে জমা ন্যাচারাল ওয়েলকে সরিয়ে দেয়। যা নেল পলিশকে বেশিদিনের জন্য নখে থাকতে সাহায্য করে। একবার নখের থেকে ভিনিগার শুকিয়ে গেলেই আপনি বেস কোট লাগাতে পারবেন।

৩. নেল পলিশটিকে রোল করে নিনঃ

৩. নেল পলিশটিকে রোল করে নিনঃ

যদি অনেকদিন ধরে আপনার নেল পলিশের শিশিটি একইভাবে শেলফে পড়ে থাকে তবে ফর্মুলাটিকে মেশাবার জন্য ভাল করে রোল করে নিন। বেশিরভাগ মানুষই নেল পলিশটিকে ওপর নিচে ঝাঁকিয়ে নেন, যার ফলে মাঝে হাওয়ার বুদবুদ তৈরি হয়ে যায়। একটা নিখুঁত ম্যানিকিওরের জন্য বুদবুদ-ওয়ালা নেল পলিশ কখনোই ভাল না।

৪. ঠান্ডার হাওয়ার নিচে শুকিয়ে নিনঃ

৪. ঠান্ডার হাওয়ার নিচে শুকিয়ে নিনঃ

গরম হাওয়া নখের রংকে শুকাতে দেয় না, পরিবর্তে এটি এর টেক্সচারকে নষ্ট করে দেয়। আপনার নেল পলিশকে শুকিয়ে নিতে, ঠান্ডা হাওয়াতে স্বাভাবিকভাবে শুকাতে দিন। বা আপনি, কোল্ড এয়ার সেটিং-এ রেখে ব্লো ড্রায়ার ব্যবহার করতে পারেন। নেল পেইন্ট তাড়াতাড়ি শুকিয়ে নিতে আরেকটি ভাল টিপস হল, ২-৩ মিনিটের জন্য বরফ ঠান্ডা জলে, আঙুল ভিজিয়ে রাখুন।

৫. আপনার নখকে আর্দ্র রাখুনঃ

৫. আপনার নখকে আর্দ্র রাখুনঃ

আপনার শরীরের মতো, আপনাকে নিজের নখেরও যত্ন নেওয়া উচিৎ, আর দেখা উচিৎ যে এটি যেন সারা দিন ধরেই হাইড্রেটেড বা আর্দ্র থাকে। নখকে হাইড্রেটেড রাখতে পর্যাপ্ত পরিমাণে জল খান। এছাড়াও, নখে তেল মালিশ করা, নখকে ঘনঘন ফেটে যাওয়া বা ভেঙে যাওয়া থেকে রক্ষা করে। হাইড্রেটেড নেল পেইন্ট, নখের পলিশকে ভেঙে আলাদা হয়ে যেতে দেয় না।

৬. ওপরের পরতটি বারবার দিনঃ

৬. ওপরের পরতটি বারবার দিনঃ

একবার মেনিকিওর হয়ে গেলে, নখের সঠিক যত্ন নেওয়া আপনার দায়িত্ব। ৩-৪ দিন পরপর আপনাকে ওপরের পরতটি আবার করে দিতে হবে, যাতে নেল পেইন্টটি নখের থেকে আলাদা না হয়ে যায়। বারবার করে নেল কালারের পরত দিলে তা নেল কালারের টুকরো টুকরো হয়ে ভেঙে পড়া আটকায় ও জেল্লা বাড়িয়ে দেয়।

৭. হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার এড়িয়ে চলুনঃ

৭. হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার এড়িয়ে চলুনঃ

হাত ধোয়ার জন্য আপনাকে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার এড়িয়ে চলতে হবে কারণ, এটি নখকে শুষ্ক করে দেয় যা ওপরের পরতটিকে তাড়াতাড়ি হটিয়ে দেয়। ঘনঘন হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার নখকে কুঁচকে দেয় ও নখকে শুষ্কও করে দেয়। তার বদলে, হাত ও আঙুল ধোয়ার জন্য কোন মাইল্ড সাবান ব্যবহার করুন।

৮. দুটো বেস কোট ব্যবহার করুনঃ

৮. দুটো বেস কোট ব্যবহার করুনঃ

নখের ডগাগুলি ভেঙে যাওয়ার প্রবণতা থাকে আর এই জন্যই আপনাকে দুইবার বেস কোট দিতে হবে, যা নখের জন্য ঢালের কাজ করবে। আপনাকে একবার বেস কোট দিতে হবে এবং অবশ্যই দ্বিতীয়বার আধা নখে (উপরের দিকে) দিতে হবে। নখের ডগার ভেঙে যাওয়া আটকাতে প্রয়োজন হলে, আপনি আরো একবার কোট দিতে পারেন।

৯. নখ শেপ করুনঃ

৯. নখ শেপ করুনঃ

আপনাকে সঠিকভাবে নখকে ফাইল করতে হবে, এতে শুধু আপনার নখ দেখতেই সুন্দর হয় না এর ফলে, নখের ভেঙে যাওয়ায় আটকায়। আপনাকে ফাইল দিয়ে আগু-পিছু করে নখ ঘষা এড়িয়ে যেতে হবে, যেহেতু এতে নখ ফেটে যেতে পারে।

১০. কিউটিকলসে নেল পেইন্ট লাগানো এড়িয়ে চলুনঃ

১০. কিউটিকলসে নেল পেইন্ট লাগানো এড়িয়ে চলুনঃ

কিউটিকলসে যাতে নেইল পেইন্ট না লাগে সেদিকে লক্ষ্য রাখুন, কারণ এটি নখের থেকে রং উঠিয়ে দেয় ও পরবর্তি সময়ে টুকরো টুকরো করে নেল পলিশ উঠিয়ে ফেলে। কিউটিকলসগুলোকে কেটে না ফেলে বরং একটা কাঠি ও কিউটিকল ওয়েলের সাহায্যে সেগুলিকে পেছনে সরিয়ে দিন। এটি তাদেরকে নেল পেইন্ট দিয়ে ঢেকে পড়া থেকে রক্ষা করবে।

English summary
Being a woman is not an easy task. From hair styling to getting a perfect manicure done, everything requires patience and talent.
Please Wait while comments are loading...